রেজি তথ্য

আজ: রবিবার, ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১লা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ ৫ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

একান্ত সাক্ষাতকারে হেডম্যান  উসুয়ে সুয়ে চৌধুরী ( মিশুক)- বাবার আর্দশকে ধরে রেখে সামনে এগিয়ে যাবো

ঝুলন দত্ত, কাপ্তাই :

রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলাধীন ৩২১ নং রাইখালী মৌজার নব নিযুক্ত হেডম্যান উসুয়ে সুয়ে চৌধুরী ( মিশুক)।   তাঁর পিতা প্রয়াত হেডম্যান উচিং থোয়াই চৌধুরী (বাবলু) গত বছরের ২২ নভেম্বর মৃত্যু বরন করলে চলতি বছরের ২ মার্চ তিনি পরিবারের বড় ছেলে হিসাবে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক কর্তৃক হেডম্যান নিযুক্ত হন। একজন গীটার বাদক হিসাবে তিনি চট্টগ্রাম ও ঢাকায় বিভিন্ন নামকরা ব্যান্ডের সাথে বাজিয়েছেন। ব্যান্ড সংগীতের অন্যতম আইডল প্রয়াত আইয়ুব বাচ্চুর কাছেও তিনি গীটার শিখেছিলেন। প্রথাগতভাবে বাবার মৃত্যুর পর অল্পবছর বয়সে তাঁকে এই দায়িত্ব নিতে হয়।

বান্দরবান বোমাং সার্কেলের অধীন এই ৩২১ নং রাইখালী মৌজায় রয়েছে ৪৮ টি গ্রাম। ২০ হাজার ৪৮ শত ৪০ একর জমি এবং  ৩২ বর্গমাইল এলাকাজুড়ে উঁচু নীচু পাহাড় আর সমতল পরিবেষ্ট এই মৌজা। জনসংখ্যা ৩০ হাজারেরও অধিক। এই মৌজার অধীনে সরকারি ভাতাপ্রাপ্ত ৩৮ জন কার্বারী( পাড়া প্রধান) আছে, এইছাড়া বোমাং সার্কেল হতে কিছু ভাতা পাওয়া আরোও কয়েকজন কার্বারী রয়েছে। রাজস্থলী উপজেলার সীমান্তবর্তী ঘিলাছড়ি পর্যন্ত বিস্তৃত এই মৌজা।
 মারমা, তনচংগ্যা, চাকমা এবং বাংগালী অধ্যুষিত এই এলাকার অধিকাংশ জনগণের আয়ের উৎস কৃষি জমি, বিভিন্ন প্রকার ফলের বাগান এবং জুম চাষ। এইছাড়া সরকারি বেসরকারি  চাকরি,  ব্যবসায়ি এবং বিভিন্ন আইন শৃঙ্খলা বাহিনীতে চাকরিরত আছেন অনেকেই।
গত রবিবার  ৩২১ নং রাইখালী মৌজার হেডম্যান কার্যালয়ে তাঁর সাথে কথা হয় এই প্রতিবেদকের।
তিনি জানান, আমার বাবা একজন জনপ্রিয় হেডম্যান ছিলেন। একজন গানপাগল মানুষ হিসেবে তিনি সকলের সাথে মিশতেন। আমিও প্রয়াত বাবার আর্দশকে বুকে ধারণ করে এগিয়ে চলতে চাই। তিনি জানান, সকলের আর্শীবাদে আমি অল্পবয়সে হেডম্যান এর দায়িত্ব পেয়েছি। বাবাকে সবসময় দেখেছি এলাকার রাস্তাঘাট উন্নয়ন, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান নির্মাণ, ব্রিজ কার্লভাট নির্মাণে তিনি সবসময় সরকার এবং ইউনিয়ন পরিষদকে সহায়তা করে  আসতে। আমিও সেইসব উন্নয়ন কর্মকান্ডে নিজেকে সম্পৃক্ত রাখতে চাই। বিশেষ করে রাইখালী কৃষি ফার্ম ঘাট এলাকার কর্ণফুলী নদী সংলগ্ন যেই সিঁড়িটি আছে, বর্তমানে সেটা জরাজীর্ণ। আমি সরকারের নিকট বিনীত অনুরোধ জানাই যেন জনগণের স্বার্থে অতিদ্রুত এই সিঁড়িটি সংস্কার করা হয়।
হেডম্যান মিশুক আরোও জানান, মৌজার অধিকাংশ জনগণ দরিদ্র। আমি বাবার মতো তাদের সুখে দুঃখে সবসময় কাছে থাকবো। সকলের সহযোগিতা নিয়ে একটি আর্দশ মৌজা হিসাবে গড়ে তুলবো।
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on pinterest
Pinterest
Share on reddit
Reddit

Discussion about this post

এই সম্পর্কীত আরও সংবাদ পড়ুন

আজকের সর্বশেষ

ফেসবুকে আমরা

সংবাদ আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০