রেজি তথ্য

আজ: বৃহস্পতিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ৯ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ ১২ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তার বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ

ঢাকা ব্যুরো:

সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা (কমিটি অফিসার) মো. রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ তুলেছেন তারই এক নারী সহকর্মী। একাধিকবার শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ এনে ওই নারী প্রথমে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। পরে সংসদ সচিবের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলে সংসদ সচিবালয় সূত্রে জানা গেছে। রফিকুল সংসদ সচিবালয়ের কমিটি শাখা-৬ এ কর্মরত। যদিও এ ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেছেন, অধীনস্থ সেই কর্মীকে তিনি শাসন করেছেন মাত্র। অভিযোগকারী নারী সংসদ সচিবালয়ে কম্পিউটার অপারেটর হিসেবে কর্মরত। গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, ওই কর্মকর্তা জোর করে অনেকবার জড়িয়ে ধরেছেন, শ্লীলতাহানি করার চেষ্টা করেছেন। অনেক অনুনয়, অনুরোধেও থামাতে পারিনি। চাকরি আর লজ্জায় বসের নির্যাতন দিনের পর দিন সহ্য করে গেছি। শুধু আমি নই। এখানে যেসব নারী বদলি হয়ে আসেন, তাদের সঙ্গেও এ রকম ব্যবহার করা হয়। কিন্তু লোকলজ্জার ভয়ে সবাই চুপ থাকে। ওই নারী জানান, এ ব্যাপারে ২০ মার্চ শেরেবাংলা নগর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন তিনি। পরে তাকে নানাভাবে চাপ দেওয়া হয়। ওই পরিস্থিতিতে অভিযোগ তদন্ত না করার জন্য পরদিন তিনি থানায় আবেদন করেন। ওই নারীর স্বামীও সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা। তিনি বলেন, সাধারণ ডায়েরির সংবাদ পেয়ে রফিক আরও ক্ষিপ্ত হন এবং ডায়েরি প্রত্যাহার না করলে পরিবারের সদস্যদের প্রাণনাশের হুমকি দেন। বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্যও রফিক বিভিন্ন লোক মারফত হুমকি দিতে থাকে। আবার প্রয়োজনে আমার স্ত্রীর পা ধরে ক্ষমা চাইবে, এমন কথাও বলেন।

পরে গত ২৮ মার্চ সংসদ সচিবের কাছে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয় জানিয়ে ওই নারীর স্বামী বলেন, নিরাপত্তাহীনতারে কারণে আমরা সংসদ সচিব মহোদয়কে অবহিত করি এবং রফিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য লিখিত আবেদন করি। সংসদ সচিবালয় সূত্রে জাান গেছে, লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর গত ৯ এপ্রিল রফিকুলকে কারণ দর্শানোর নোটিস দেয়া হয়েছে।
সংসদের ডিসিপ্লিন অ্যান্ড প্রিভিলেজ শাখার উপসচিব এস এম মঞ্জুর বলেন, তার বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়ার পর তাকে কারণ দর্শানোর নোটিস দেওয়া হয়েছে। সাত দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে। ওই নোটিসে বলা হয়েছে, অফিসে কেউ না থাকার সময় অফিস সহকারীকে বাইরে পাঠিয়ে অভিযোগকারী ওই নারীর সঙ্গে ‘অসৌজন্যমূলক আচরণ, গালিগালাজ ও অপ্রীতিকর আচরণ’ করেন রফিক। কম্পিউটারে ‘আপত্তিকর ছবি’ বের করে বলেন, ‘এগুলো দেখলে মনে প্রশান্তি আসবে’। ওই নারী ওয়াশরুমে যাওয়ার পথেও রফিকুল বাধা দিতেন। একদিন ফাঁকা অফিসে ওই নারীর ‘গায়ে হাত’ দেন রফিকুল। চিৎকার করলে মুখ চেপে ধরে প্রাণনাশের হুমকি দেন বলে অভিযোগকারীনী জানিয়েছেন। এ বিষয়ে রফিকুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে বলে জানান এস এম মঞ্জুর।
অভিযোগের বিষয়ে প্রশ্ন করলে রফিকুল ইসলাম বলেন, আমি আসলে তাকে শাসন করতে চেয়েছিলাম। এ বিষয়টিই বড় করে দেখা হচ্ছে। তবে আমার বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে এটা ঠিক। এছাড়া সচিব স্যারের কাছে বিচার দেওয়া হয়েছে। তাদের কাছেই এ ব্যাপারে জানতে পারবেন। আমি কিছু বলতে চাই না।
এদিকে সংসদ সচিবালয়ের একাধিক কর্মচারী বলেছেন, রফিকের বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ দীর্ঘ দিনের। আরও অনেকের সঙ্গেই এ ধরনের অশোভন আচরণ করার অভিযোগ তারা শুনেছেন। এদিকে ওমরাহ করার জন্য সৌদি আরবে যেতে আজ রবিবার থেকে ছুটি নিয়েছেন রফিকুল।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on pinterest
Pinterest
Share on reddit
Reddit

Discussion about this post

এই সম্পর্কীত আরও সংবাদ পড়ুন

আজকের সর্বশেষ

ফেসবুকে আমরা

সংবাদ আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯