রেজি তথ্য

আজ: রবিবার, ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১লা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ ৫ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

ঈদগাঁওতে ইসলামী ব্যাংকের উদ্যোগে ‘সার্বজনীন কল্যাণে মাহে রমজান’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠিত

ঈদগাঁও প্রতিনিধি :

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড কক্সবাজারের ঈদগাঁও শাখার উদ্যোগে ‘সার্বজনীন কল্যাণে মাহে রমজান’ শীর্ষক আলোচনা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৯ এপ্রিল বিকেলে বাস স্টেশনের ব্যাংকের অভ্যন্তরে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন ঈদগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ছৈয়দ আলম। ইসলামী ব্যাংক ঈদগাঁও শাখার ব্যবস্থাপক মনছুর হায়াতের সভাপতিত্বে এবং দ্বিতীয় কর্মকর্তা কফিল উদ্দিন চৌধুরীর সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেন ইসলামী ব্যাংক রামু শাখার ফার্স্ট অ্যাসিস্ট্যান্ট ভাইস-প্রেসিডেন্ট শফি উল্লাহ ও স্থানীয় অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মাস্টার নুরুল হক।
মাহে রমজানের গুরুত্ব ও তাৎপর্য নিয়ে আলোচনা করেন খোদাই বাড়ি এ, জি, লুৎফুল কবির আদর্শ বালিকা আলিম মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুর রহমান আজাদ, খুটাখালী তমিজিয়া ইসলামিয়া ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসার আরবি প্রভাষক মাওলানা আবুল ফজল, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক ঈদগাঁও শাখার আলোচক মাওলানা এনামুল হক ইসলামাবাদী এবং গোমাতলী মুনচেহেরিয়া আদর্শ বালিকা দাখিল মাদরাসার সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা মঈনুদ্দীন।
আলোচকরা বলেন, ইসলামী ব্যাংকিং ব্যবস্থা ইসলামী অর্থনীতি বিকাশের ক্ষেত্রে পৃথিবীতে নতুন দিগন্ত সৃষ্টি করেছে। এ ব্যাংকিং ব্যবস্থা এখন পৃথিবীর রোল মডেল। অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে ইসলামী ব্যাংকিং ব্যবস্থা বিপ্লব সৃষ্টি করতে সক্ষম হয়েছে। মুসলমান হিসেবে আমাদেরকে ব্যাক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক সহ জীবনের সর্বক্ষেত্রে ইসলামকে মেনে চলতে হবে। মুসলমানেরা পৃথিবীতে নেতৃত্বপূর্ণ ও সম্মানিত জাতি। তাই অর্থনৈতিক সহ সকল ক্ষেত্রে ইসলামের পরিপূর্ণ অনুসরণ বাঞ্ছনীয়। পৃথিবীতে বেঁচে থাকতে হলে ঈমানের উপর থেকেই ইসলামকে অনুসরণ করতে হবে।

ইসলামী আলোচকরা বলেন, পবিত্র মাহে রমজান ধর্ষণ, যিনা ও ব্যভিচার নিয়ন্ত্রণে আল্লাহর বিশেষ নেয়ামত স্বরূপ। মাহে রমজান আমাদেরকে সুন্দর সমাজ বিনির্মাণ ও ধৈর্য ধারণের শিক্ষা দেয়। প্রকৃত রোজাদাররা কখনো কোন অপরাধ কার্যক্রমে জড়িত হতে পারেন না। সহমর্মিতার বার্তাবাহী এ রমজান রোজাদারদেরকে তাকওয়াবান করে তোলে। সারাদিন ক্ষুধা ও তৃষ্ণার তীব্র যন্ত্রণা সত্ত্বেও রোজাদাররা আল্লাহর ভয়ে সকল প্রকার পানাহার থেকে বিরত থাকেন। এ মাসে আল্লাহ তাআলা বিত্তবান ও ধনীদেরকে তাদের সম্পদ থেকে দরিদ্রের অংশ তথা কর্জে হাসানা ও যাকাত আদায়ের নির্দেশনা দিয়েছেন। বক্তারা আরো বলেন, আত্মশুদ্ধির উপযুক্ত সময় হচ্ছে পবিত্র মাহে রমজান। এ মাস মুসলমানদের চরিত্র গঠনের মাস। তাই আমাদেরকে আল্লাহর চরিত্রে চরিত্রবান হতে হবে। রমজানের শিক্ষার আলোকে সর্বপ্রকার যৌন ক্ষুধা থেকে আমাদের বিরত থাকতে হবে। যৌন প্রবৃত্তি নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। তখনই তাকওয়াভিত্তিক আদর্শ জীবন গঠন সম্ভব হবে।
অনুষ্ঠানে স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের মধ্যে মাওলানা ছলিম উল্লাহ জিহাদী, ডাক্তার আলহাজ্ব আমির সোলতান, মাস্টার ছৈয়দুল আলম হেলালি, সাবেক ছাত্রনেতা দেলাওয়ার হোসাইন, মাওলানা আলী আহমদ, কাজী মুজিব বেলাল, মাওলানা মনছুর আলম, মাওলানা এমদাদুল হক, মাওলানা রমিজ আহমদ, খোরশেদ আলম, মাওলানা আজিজুল হক, মিজানুর রহমান, গুরা মিয়া সহ নানা শ্রেণি-পেশার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও ব্যাংক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
শেষে মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা আব্দুর রহমান আজাদ।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on pinterest
Pinterest
Share on reddit
Reddit

Discussion about this post

এই সম্পর্কীত আরও সংবাদ পড়ুন

আজকের সর্বশেষ

ফেসবুকে আমরা

সংবাদ আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০