রেজি তথ্য

আজ: শুক্রবার, ১২ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ২৮শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ ৬ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

ট্রেনে ভোগান্তি নিয়ে রাজধানীতে ফিরছে মানুষ, ৪০০ টাকার ফিরতি টিকেট হাজার টাকা

ঢাকা ব্যুরো:

যাবার সময় ট্রেনের অগ্রিম ঈদ টিকেট কাটতে যে ধরনের ভোগান্তি হয়েছিল, ফেরার বেলায়ও টিকেট না পাওয়ায় একই রকম ভোগান্তির মধ্যে দিয়ে বৃহষ্পতিবার ঈদ ফেরৎ মানুষ ফিরে আসছে কর্মস্থল ঢাকায়।

ছয় দিনের ছুটি শেষ করে প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি শেষে অবশেষে বৃহস্পতিবার ঢাকায় ফিরেন হাজারো মানুষ। ঈদের আনন্দময় স্মৃতি নিয়ে বাধ্য হয়ে কাজের টানে ঢাকায় কর্মস্থলে যোগ দিতে ফিরছেন তারা। ভোর থেকে কমলাপুর স্টেশনে ট্রেনে করে ঢাকায় ফেরা যাত্রীদের চাপ চোখে পড়ার মতো। তবে ঢাকায় আসতে নানা দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে বলে জানিয়েছেন যাত্রীরা।
৪০০ টাকার টিকেট হাজার টাকায় কালো বাজারে কিনতে বাধ্য হয়েছেন যশোর থেকে সুন্দরবন এক্সপ্রেস আসা ফিরোজ, রাকিব ও শিমুল। কমলাপরে নেমে তারা জানান, ঈদ অগ্রিম টিকেট ১ মে বিক্রির দিন থেকেই তারা কাউন্টারে বা অন লাইনে চেষ্টা করে কোন টিকেট না পেয়ে বাধ্য হয়ে ৪০০ টাকার টিকেট হাজার টাকায় কিনতে বাধ্য হয়েছেন। এমনি অনেকেই অভিযোগ করেন, কাউন্টারেও টিকেট নেনই, আবার অন লাইনে প্রবেশও করা যাচ্ছে না। এমতাবস্থায় বাসে কোন সিট না পেয়ে খুলনা, যশোর, নাটের , বেনাপোলসহ পশ্চিমাঞ্চলের অধিকাংশ ট্রেনের যাত্রীরা বাড়তি অর্থ দিয়ে কালো বাজারে টিকেট কিনতে বাধ্য হন।
আবার ট্রেনের প্রতিটি বগিতে অসম্ভব ভিড়, বসা যাত্রীর দ্বিগুন যাত্রী দাড়িয়ে আসছে। বার্থরুম ব্যবহার তো দুরের কথা সিট থেকে নড়া চড়াও করা যাচ্ছে না। তার ওপরে পশ্চিমাঞ্চলের প্রায় প্রতিটি ট্রেন দেড় থেকে তিন ঘন্টা দেরীতে কমলাপুর পৌছেছে বলে যাত্রীরা অভিযোগ করেছেন।
নাটোর থেকে ঈদের ছুটি কাটিয়ে আসা সুমনা নামের এক যাত্রী বলেন, ঈদের সময় ট্রেনে যেতে যে ধরনের দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছিল, ফিরতেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। পথে নানা ধরনের দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। ট্রেনে যাত্রীদের অনেক চাপ ছিল। অনেকে টিকিট না পেয়ে দাঁড়িয়ে এসেছে। গরমে হাঁসফাঁস করার মতো অবস্থা।
কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার মোহাম্মদ মাসুদ সারওয়ার বলেন, সারাদেশ থেকে ঈদের স্পেশাল ট্রেনসহ মোট ৩৭টি আন্তঃনগর ট্রেন যাত্রী নিয়ে ঢাকায় আসছে। অনেক ট্রেনই সময় মতো আসতে পারেনি। এতে কিছুটা দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে যাত্রীদের। আর স্টা-িং টিকেট ছাড়াও বেশ কিছু যাত্রী দাড়িয়ে আসার ফলে সিটের যাত্রীদের কিছুটা অসুবিধা হয়েছে বলেও স্বীকার করেন তিনি।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on pinterest
Pinterest
Share on reddit
Reddit

Discussion about this post

এই সম্পর্কীত আরও সংবাদ পড়ুন

আজকের সর্বশেষ

ফেসবুকে আমরা

সংবাদ আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১