রেজি তথ্য

আজ: রবিবার, ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১লা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ ৫ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

চুক্তির ২৬ বছরেও পাহাড়ে শান্তি ফিরেনি

মোশাররফ হোসেন, রামগড় :

১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকার পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সঙ্গে পার্বত্য চুক্তির মাধ্যমে দীর্ঘ দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে বিরাজমান রক্তক্ষয়ী সংঘাতের অবসান ঘটাতে সক্ষম হয়েছে বলে দাবী করা হয়, কিন্তু পার্বত্য চুক্তি স্বাক্ষরের আগে শান্তিবাহিনী নামের আঞ্চলিক সশস্ত্র দল একটি থাকলেও বর্তমানে পাহাড়ের ৬টি আঞ্চলিক সশস্ত্র দলের উপস্থিতির লক্ষ্য করা যায়, দলগুলো হচ্ছে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস), ইউনাইটেড পিপলস্ ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ), জেএসএস সংস্কার, ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক, মগ লিবারেল পার্টি, কেএনএফ। এই সংগঠনগুলো তাদের নিজেদের আধিপত্য বিস্তারে প্রতিনিয়ত পাহাড়ে সংঘাত লাগিয়ে রেখেছে এতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে পাহাড়ের সাধারণ নাগরিকরা ।

চুক্তি বাস্তবায়ন করতে যেয়ে জেলা ও আঞ্চলিক পরিষদ বৈশম্য ভাবে সৃষ্টি হয় যেমন দুই তৃতীয়অংশ সদস্য সহ চেয়ারম্যান পদগুলো
পাহাড়ের প্রায় ৪৮ % নাগরিক উপজাতীয়দের জন্যে সংরক্ষিত রাখা হয়, আর প্রায় ৫২ % নাগরিকদের জন্য চেয়ারম্যান পদ ছাড়া এক তৃতীয়অংশ সদস্যের পদ রাখা হয়” এতে পাহাড়ের বাঙ্গালীরা চরমভাবে সাংবিধানিক অধিকার হারায় ” কারণ গণপ্রজাতত্রী বাংলাদেশের সংবিধানে সকল নাগরিকদের সমান অধিকার ও সুযোগ সুবিধা প্রদানের জন্য রাষ্ট্র কে দায়িত্ব দেওয়া হয়।
এছাড়াও সারাদেশে উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহে শুধু পাহাড়ের উপজাতিদের জন্যে ভর্তি কোটা চালু আছে ” সরকারি চাকরিতে উপজাতিদের জন্য বিশেষ কোটা এবং ব‍্যবসার ক্ষেত্রে আয়কর মুক্ত সহ বৈশম্য মূলক আরো অনেক সুযোগ সুবিধা বহাল আছে, এ কারণে পাহাড়ে বসবাসরত সাধারণ মানুষের ভাগ্যের কোনো পরিবর্তন ঘটেনি। রয়েছে নানা হতাশা ও বঞ্চনা। এবিষয়ে প্রতিবেদক বক্তব্য জানতে চাইলে, পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক ও খাগড়াছড়ি জেলা শাখার যুগ্ম আহবায়ক সাংবাদিক নিজাম উদ্দিন বলেন পার্বত্য চুক্তির ২৬ বছরেও বলতে হচ্ছে ” বাঙ্গালীরা অনেক সাংবিধানিক অধিকার বঞ্চিত হয়েও সন্ত্রাসী কার্যক্রম মুক্ত পার্বত‍্য চট্টগ্রাম চেয়েছিলো, কিন্তু পার্বত‍্য চুক্তির পূর্বের অবস্থার চেয়েও এখন পাহাড়ে উপজাতীয় সন্ত্রাসী সংগঠন বৃদ্ধি পেয়েছে এবং তাদের হাতে আরো আধুনিক অস্ত্র মজুদ বেড়েছে সুতরাং এর থেকে প্রমাণিত হয় চুক্তি করে অতিরিক্ত সুযোগ সুবিধা দিয়ে পাহাড়ে কোন দিন শান্তি প্রতিষ্ঠা করা যাবেনা।”

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on pinterest
Pinterest
Share on reddit
Reddit

Discussion about this post

এই সম্পর্কীত আরও সংবাদ পড়ুন

আজকের সর্বশেষ

ফেসবুকে আমরা

সংবাদ আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০